LOGo  


২৪ ঘন্টা আপনার পাশে, আপনার সাথে ডেইলি নারায়ণগঞ্জ ২৪ ডটকম

dailynarayanganj24@gmail.com

 

 

বাড়ছে গান, কমছে মান

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: গত কয়েক বছর ধরেই আমাদের দেশে ডিজিটালি গান প্রকাশ পাচ্ছে। তবে পুরোপুরি ডিজিটালি গান প্রকাশ হচ্ছে দু’বছর ধরে। এই সময়ে সিডি মাধ্যম হয়েছে বিলুপ্ত। এখন সিডিতে গান প্রকাশ কোনো অডিও কোম্পানি করে না বললেই চলে। এর পরিবর্তে ডিজিটালি গান শুনছেন শ্রোতারা। অডিওর পাশাপাশি তার সঙ্গে ভিডিও প্রকাশের একটা রীতিও যেন অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। গান শোনা ও দেখার সবচাইতে বড় মাধ্যম এখন ইউটিউব। বিশ্বের অন্য দেশের মতো আমাদের দেশে ইউটিউবে গান প্রকাশ চলছে কোম্পানি থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত পর্যায়েও।


ইউটিউবে গান প্রকাশে কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। নেই কোনো সেন্সরও। কোম্পানির পছন্দ অপছেন্দরও তোয়াক্কা করতে হচ্ছে না। কোম্পানির বাইরে যে কেউ যেকোনোভাবে গান প্রকাশ করতে পারছে ইউটিউবে। যার ফলে গত দু’বছরের ক্রমান্বয়ে গান প্রকাশের সংখ্যা কেবল বেড়েছে এ মাধ্যমটিতে। আর মান ততটাই কমেছে। কথা, সুর, সংগীত কিংবা গাওয়া মানসম্পন্ন হলো কি হলো না তার কোনো খেয়াল নেই। গান প্রকাশ করতে পারলেই শিল্পীর তকমাটা জুড়ে নেয়া যায় নামের পাশে। এভাবেই চলছে দেশের সংগীতাঙ্গন এখন। বেশিরভাগ কোম্পানিও মানের ধার ধারছে না। যে গান দিয়ে ভিউ বেশি হতে পারে ইউটিউবে সে ধরনের গানই কেবল প্রকাশ করছে। যার ফলে মানের থেকে কাটতি কিংবা ভিউয়ের প্রতি মনোযোগ রেখেই গান প্রকাশ করছে কোম্পানি। তবে সব কোম্পানি নয়। অন্যদিকে অনেক মানহীন গানও এখন ভাইরাল হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে। কিন্তু মানসম্পন্ন গানগুলো প্রচারণার অভাবে পিছিয়ে পড়ছে। মানসম্পন্ন শিল্পীরাও ভাইরাল
কিংবা তথাকথিত হালের ‘ভিউনির্ভর’ শিল্পীদের থেকে সম্মান ও সম্মানির দিক থেকে পিছিয়ে পড়ছেন। যেটা মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির জন্য একটি অশনি সংকেতই বটে। এ বিষয়ে জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ফাহমিদা নবী বলেন, আমিতো দেখছি এখন সবাই গান গাওয়ার প্রতিযোগিতায় নামছে। আবার মানহীন গানগুলোও প্রচারণাও চলছে বেশ জোরেশোরে। অনেক কোম্পানি সে গানগুলো প্রকাশ করছে কোটি ভিউয়ের প্রত্যাশায়। ঢাকঢোল পিটিয়ে এসব গানের প্রচারণার ফলে ভালো মানের গান ও শিল্পীরা পিছিয়ে পড়ছে। এটা যে কত বড় ভয়াবহ ঘটনা তা আমরা আঁচ করতে পারছি না এখন। কারণ, গান গাইতে হয়তো সবাই পারেন, কিন্তু প্রকৃত শিল্পী হয়ে ওঠা সবার হয় না। আমি মনে করি এ অবস্থা থেকে উত্তরণ দরকার। সবার সম্মিলিত চেষ্টায় এটা রোধ করা যেতে পারে। প্রকৃত শিল্পীদের গানের প্রচারণা আরো বেশি দরকার। তার মানে এই না যে ভালো গান হচ্ছে না। মানসম্পন্ন গানও হচ্ছে। কিন্তু মানহীন গানের প্রচারণায় মানসম্পন্ন গানগুলো পিছিয়ে পড়ছে সাময়িকভাবে। তবে শেষ পর্যন্ত জয় কিন্তু ভালো গানেরই হবে। এ বিষয়ে সংগীত তারকা আসিফ আকবর বলেন, চলতি সময়ে ইউটিউব গান প্রকাশের সবচাইতে বড় মাধ্যম। এটা অস্বীকার করার উপায় নেই। তবে ভিউ দিয়ে শিল্পীকে মূল্যায়ন করা কখনোই সম্ভব না। আমার নিজের গানের ভিউ নিয়েও তেমন মাথাব্যথা নেই। আমি সব সময় বিশ্বাস করি ভালো মানের গান দীর্ঘ সময় টিকে থাকে। আর সস্তা গান সাময়িকভাবে আলোচনায় আসলেও সেটা দীর্ঘদিন মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নেবে না। এটাই বাস্তবতা। তবে আমি চাই ভালো শিল্পীদের প্রচারণা আরো বাড়ানো হোক। তাহলেই ভালো মানের গানগুলো ভালোভাবে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবে।

সংবাদ শিরোনাম