LOGo  


২৪ ঘন্টা আপনার পাশে, আপনার সাথে ডেইলি নারায়ণগঞ্জ ২৪ ডটকম

dailynarayanganj24@gmail.com

 

 

শেখ হাসিনার হাত ধরেই নারীরা এগিয়ে যাবে : নাসরিন ওসমান

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের সহধর্মিনী মিসেস নাসরিন ওসমান বলেছেন, আমি চাই বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীতে আবারো প্রধানমন্ত্রী হয়ে দেশের হাল ধরবেন। উনার পরামর্শ অনুযায়ী অনেক নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টি হচ্ছে।আমরা নারীরা তাঁর নেতৃত্বে এগিয়ে যাবো নতুন উদ্যোক্তাদের নিয়ে।

 

শুক্রবার ১২ অক্টোবর বিকেল ৪টায় নারায়ণগঞ্জ রাইফেল ক্লাব প্রাঙ্গনে নতুন প্রজন্ম উদ্যোক্তা উন্নয়ন ফাউন্ডেশন ও নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাস্ট্রির যৌথ উদ্যোগে পুরস্কার ও সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

স্বামী সেলিম ওসমানের সহযোগিতা চেয়ে তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান সাহেবও কোন দিকে না তাকিয়ে এলাকায় স্কুল কলেজ মাদ্রাসার উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। উনি নিজের জন্য কিছু করেন না। আমি চাইবো উনি যেন সংগঠনটির পাশে থাকেন। এখানে অনেক ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা আছেন। আমি জানিনা নারায়ণগঞ্জের মত বাংলাদেশে অন্য কোথাও আছে কিনা। এতো গুলো ব্যবসায়ী সংগঠন একত্রে কাজ করতে একসাথে উন্নয়ন করে পথচলে। আমি আশা করবো ব্যবসায়ী সংগঠন গুলোও সহযোগিতা করবে। উনার প্রত্যতœ অঞ্চলে গিয়ে কাজ করেন। উনারা যে প্রত্যাশা নিয়ে এসেছেন আমি চাই সেই প্রত্যাশা যেন অবশ্যই পূরণ হয়।

নতুন নারী উদ্যোক্তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এক সময় আমি নতুন ছিলাম আজ পুরনো। আমিও ছোট ছিলাম। আমার স্বামী সেলিম ওসমান আমাকে অনেক সহযোগীতা করেছেন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী একজন নারী। উনি নারীদের জন্য সর্বাত্মক সহযোগীতা করছেন যার জন্য আমরা নারীরা এগিয়ে যাচ্ছি। তবে নারীরা টাকা উপার্জন করতে গেলেই ঘরে অশান্তি। আমাদের সংসার, শ্বশুর, শ্বাশুরি, স্বামী, সন্তান সবার দিকেই দৃষ্টি দিতে হয়। সব কিছু সামলে পরিবার থেকে সম্পূর্ন সহযোগিতা নিয়ে তবেই আমরা সামনের দিকে এগোতে পারবো। পরিবার ভেঙ্গে, পরিবারে অশান্তি করে এটা আমাদের কাম্য নয়। আমরা চাইবো আমাদের সন্তানদের প্রতিষ্ঠিত করতে। সন্তানদের ভালমন্দ সব কিছু মায়েদেরই দেখতে হয়। একসময় বাংলাদেশে পুরুষ শাসিত সমাজ ছিল এখন আর নেই। এখানে ধর্মীয় একটা বাধার কথা বলা হয়েছে। আমার মনে হয় আমরা ধর্মীয় ব্যাপারটা মাথায় রেখে শুধু টাকা রোজগারের পেছনে না ছুটি, যদি আমরা সম্মানের সাথে সবকিছু করতে পারি তাহলে মনে হয়না বাধার কোন কিছু আছে। সংগঠনটি নতুন নারায়ণগঞ্জে আমাদের অনেক উদ্যোক্তা আছেন। সেলিম ওসমান সাহেব অনেক উদ্যোক্তাকেই প্রতিষ্ঠিত করেছেন আগামীতেও করবেন। আমি আশা করছি উনার সাথে আমি কাজ করতে পারবো এবং সর্বাত্মক সহযোগিতা করবো।

এর আগে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এর সভাপতি খালেদ হায়দার খান সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের উদ্ধৃতি টেনে বলেন, আজকে এখানে ব্যবসায়ী নেতা হিসেবে এমপি সেলিম ওসমান সাহেবের আসার কথা ছিল। কিন্তু তিনি আমাকে জানিয়েছেন, যেহেতু এখানে নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে অনুষ্ঠান। তাই যে নারী উনাকে একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে উঠতে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছেন। যিনি টানা দুই বার নারায়ণগঞ্জ জেলায় শ্রেষ্ঠ নারী করদাতার সম্মান অর্জন করেছেন, যিনি কখনো কোন কাজকেই ছোট করে দেখেননি বা অসম্মানজনক মনে করেননি, যিনি দীর্ঘ জীবন কৃষির উপর কাজ করেছেন, উনার জীবনে প্রতিটি কাজে যিনি উৎসাহিত করেছেন সেই মহিয়সী নারীকেই আমাদের মাঝে পাঠিয়েছেন। যিনি উনার সহধর্মিনী মিসেস নাসরিন ওসমান। সেলিম ওসমানকে তিনি শূন্য থেকে আজকে বাংলাদেশের একজন প্রতিষ্ঠিত শিল্পদ্যোক্তা বানিয়েছেন যিনি এখন পর্যন্ত বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রনালয় থেকে পৃথকভাবে মোট ৯বার বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) সম্মাননা পেয়েছেন। যিনি একই সাথে সংসার এবং ব্যবসা পরিচালনা করেছেন। সেই সাথে আমাদের গার্মেন্টে কর্মরত শ্রমিক নারী ও পুরুষ উভয়ের সাথে তাদের সুবিধা-অসুবিধা নিয়ে প্রায়ই আলোচনার মাধ্যমে সেগুলোর সমাধানের ব্যবস্থা করেছেন। তাই আজকে উনি তাঁকে পাঠিয়েছেন নিজের অভিজ্ঞতা গুলো নারায়ণগঞ্জের নতুন নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে ভাগাভাগি করে তাদের সহযোগীতা করার জন্য।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. শিরীন বেগম বলেন, আমাদের সামনেই বাইতুল আমান। এখানে বঙ্গবন্ধু, শেরেবাংলা, ভাষানী সহ সকলে আগমন ঘটেছে। এই বাড়িতেই আওয়ামীলীগে জন্ম হয়েছে। এই বাড়িতে জন্ম নেওয়া মরহুম শামসুজ্জোহা স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত, মিসেস নাগিনা জোহা ভাষা সৈনিক হওয়ার পাশাপাশি একজন রতœগর্ভা মা। উনার তিনটি ছেলে প্রয়াত নাসিম ওসমান, সেলিম ওসমান, এবং শামীম ওসমান সবাই সংসদ সদস্য হয়েছে। উনাদের মত নেতৃত্ব পেয়ে আমরা নারায়ণগঞ্জের মানুষ ধন্য। এই নেতৃত্ব আমাদের ধরে রাখতে হবে।

শৈশবের স্মৃতি তুলে শিরীন বেগম বলেন, আমি প্রফেসর হয়েছি। কিন্তু সেলিম ওসমান পড়ালেখায় অতদূর না গেলেও সে লাখো মানুষের চাকরি দিয়ে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন। আমি নাসিম ওসমান ও সেলিম ওসমানের প্রতিনিধি হয়ে কদমরসুল কলেজের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছি এবং তাদের সহযোগীতায় কদমরসুল কলেজ সরকারী হয়েছে যেটি আমার জীবনের সব থেকে বড় সফলতা। কিন্তু এরজন্য আমাকে যে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে তা আমি স্বপ্নেও ভাবি নাই। সেলিম ওসমান এবং উনার সহধর্মিনী মিসেস নাসরিন ওসমান আমার মাথায় স্বর্ণের মুকুট পড়িয়ে দিয়েছেন। সেই সময় আমি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়ে আমার ভাইকে জড়িয়ে ধরে কেঁদে ফেলে ছিলাম। কারন এমন সংবর্ধনা পাবো আমার চিন্তাতেও ছিল না। এমপি সেলিম ওসমান নিজের অর্থায়নে ৭টি স্কুল বানিয়েছেন, ২টি প্রতিবন্ধী স্কুল বানিয়েছেন, ৫০০জন নারীকে তিনি উদ্যোক্তা বানিয়েছেন। সেলিম ওসমান দানবীর, স্বামীর মত নাসরিন ওসমানও দানবীর। আপনারা যেহেতু উনাদের সহযোগীতা চেয়েছেন আমার বিশ্বাস নারায়ণগঞ্জ তথা সারা বাংলাদেশে সেলিম ওসমানের হাত ধরে আপনারা অনেকদূর এগিয়ে যেতে পারবেন।

সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনটির চেয়ারম্যান সাগুফতা সুলতানা নতুন উদ্যোক্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, নতুন প্রজন্ম উদ্যোক্তা উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে বিশ্বে নতুন দ্বার উন্মোচন করতে পারবে। নারায়ণগঞ্জ প্রাচ্যের ডান্ডি। ধর্মীয় অনুভূতিতে অনেক নারী ব্যবসাকে খাটো করে দেখে। কিন্তু আমি বলবো ব্যবসাকে খাটো করে দেখার কিছু নাই। ইসলামে প্রথম ১৮বার ব্যবসার কথা বলা হয়েছে ১৯তম বার চাকরির কথা বলা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য অনেক বড় ক্ষেত্র। এখানকার তরুনরা বিশ্বে আইকন হয়ে দাড়াবে। প্রশিক্ষনের মাধ্যমে পন্য উৎপাদন থেকে শুরু করে রপ্তানিকরনের একটা পর্যায় পর্যন্ত পৌছে দেওয়া হবে। তোমরা চাইলে এই সম্ভাবনার দ্বার উম্মোচিত হবে। বাংলাদেশে সর্বপ্রথম নারায়ণগঞ্জ থেকেই শুরু হবে নারী বান্ধব শিল্পকারখানা।

আরো উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েল, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সহ সভাপতি মোর্শেদ সারোয়ার সোহেল, পরিচালক খন্দকার সাইফুল ইসলা, ফারুক বিন ইউসুফ পাপ্পু, দৈনিক শীতলক্ষ্যা পত্রিকার সম্পাদক আরিফ আলম দিপু, নতুন প্রজন্ম উদ্যোক্তা উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের সহ সভাপতি রেজায়ুর রহমান সহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ অন্যান্যরা।

সংবাদ শিরোনাম