LOGo  


২৪ ঘন্টা আপনার পাশে, আপনার সাথে ডেইলি নারায়ণগঞ্জ ২৪ ডটকম

dailynarayanganj24@gmail.com

 

 

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের কারনে জিমিয়ে পড়ছে না’গঞ্জ বিএনপি

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকমঃ জিমিয়ে পড়ছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির

রাজনীতি। দলীয় নিয়মনীতি, সাংগঠনিক কর্মকান্ড নিয়ে নেই তেমন কোন অগ্রগতি স্থানীয়শীর্ষদের। কেন্দ্রীয় কর্মসূচী ব্যথিত দলের সাংগঠনিক কর্মকান্ড একেবারেই নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছে এ জেলায় বিএনপি’র রাজনীতি। ঘোষিত কর্মসূচী গুলোতে হাতে গোনা কয়েক জন নেতাকর্মী নিয়ে ফটোসেশনের রাজনীতিতে উপস্থিতি দেখালেও দলের অগ্রগতি নিয়ে ভাবতে দেখা যাচ্ছে না তাদেরকে। চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে প্রেরনের পর নেতাকর্মীদের মধ্যে আস্থাহীনতার ভাব দেখা দিয়েছে।
শুধু কেন্দ্রীয় কর্মসূচী গুলোতে গাঁ সারা ভাব নিয়ে পালন করে আসলে স্থানীয় কর্ণধাররা দলের চেয়ে বেশী ভাবছেন নিজেদের অস্থান নিয়ে। কর্মসূচীতে নেতাদের বক্তব্যে তীব্রতা ও হুঙ্কারে কর্র্মীদের মধ্যে সাহসের সঞ্চার হলেও সেটাকে নিমিশেই ধুলিসাৎ করে দিচ্ছেন দিকনির্দেশকরা। যদি এই সকল সুবিধাবাদীদের মধ্যে অনেকেই স্বপ্ন দেখছে আগামী জাতীয় নির্বাচনে দলের টিকেট নিয়ে প্রতিনিধিত্বে অংশগ্রহন করার। আর এই সুযোগকে কাজে লাগাতে নিজ দলের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করতে পিছপা হচ্ছেন না।
দলের চেয়ারপার্সনকে মুক্ত করার চেয়ে বেশী আগ্রহ প্রকাশ করতে দেখা যাচ্ছে নির্বাচনে অংশগ্রহনের বিষয়টিকে। প্রকাশ্যে কর্মসূচীতে নেত্রীকে মুক্তির হুংকার দিয়ে আসলেও বাস্তবে সেটা মূলহীনতার তালিকায় লিপিবদ্ধ করে রেখেছেন অন্তরালে।
এ বিষয় তৃনমূল বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে দলের সমর্থন প্রত্যাশি অনেকেই মূলধারা থেকে বের হয়ে স্বার্থ হাসিলের রাজনীতিত্বে ব্যস্ত হয়ে পরেছেন। শুধু বিএনপি নয় এর সহযোগী সংগঠনের নেতারা একই কর্মকান্ডে জরিয়ে পরছেন বলে অভিযোগ তৃনমূলের। তাদের মতে, দলের এই দুঃসময়ে এই ধরনের আচরন সকলের জন্যই নিরাপদ হীন। এই সকল সুবিধাবাদীরা হাতে গুনা দু’ই একজন কর্মী নিয়ে নিজেকে বড় নেতা ভাবতে শুরু করলেও ব্যক্তি স্বার্থ হাসিলের আশায় দলকে ক্ষতির দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এখন সময় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদেরকে সাংগঠনিক ভাবে শক্তিশালী করা। কিন্তু সেটা না করে স্বার্থ হাসিলের জন্য দলের মধ্যে বিভক্তি সৃষ্টি করে যাচ্ছে। এরা মানুষের গনতন্ত্র রক্ষার কথা বলেও প্রকৃত পক্ষে নিজের অর্থতন্ত্রকে বাড়ানোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন।
তারা আরও বলেন, বিগত দিনে আন্দোলন সংগ্রামে কৌশলবাজ এই নেতাদের রাজপথে না দেখা গেলেও নির্বাচনে দলের টিকেট পাওয়ার আশায় নিজেকে সক্রিয় নেতাদের তালিকায় রাখতে উঠে পরে লেগেছেন। বছরের ১১ মাস নেতাকর্মীদের কোন খোজ খবর না রাখলেও, নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য অনেকেই এক মাস ঘুরবে কর্মীদের দ্বারে দ্বারে। এদের তালিকায় রয়েছে অনেক সাংগঠনিক নেতারাও তারা বিগত দিনে আন্দোলন সংগ্রামে দলের জন্য ভ’মিকা রেখেছেন। দল যদি তাদেরকে মনোনয়ন দেয় সেখানে আমাদের কোন দুঃখ থাকবে কিন্তু যারা দলের সমর্থন নিয়ে অর্থের বিনিময়ে নির্বাচনে গোপনে সরকার দলীয় নেতাদের চাটুকারিতা করবে। আমরা সব সময় তাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে যাবো। কারণ তাদের দ্বারা দল ও দলের তৃনমূল কখনো নিরাপদ নয়। আর এই সকল ফায়দাবাজ নেতারা অতীতেও ছিলো, বর্তমানেও বিরাজমান এবং ভবিষ্যত্বেও থাকবে। এরা শুধু দলের নেতাকর্মীদের কাছেই পরিচিত নয় জনগনের কাছেও চিহ্নিত।
এ সময় তারা আরও বলেন, সুবিধাবাদীদের আহবান করবো দেশের জনগন বিএনপির দিকে চাতক পাখির ন্যায় তাকিয়ে আছে। নিজের স্বার্থ হাসিলের চেষ্টা থেকে সড়ে গিয়ে মূলধারার রাজনীতিত্বে ফিরে আসুন। দল ও দেশের জনগনের জন্য কাজ করুন্ সময় হলে অবশ্যই বিএনপির কর্ণধাররা আপনাদের মূল্যায়ন করবে।

সংবাদ শিরোনাম