LOGo  


২৪ ঘন্টা আপনার পাশে, আপনার সাথে ডেইলি নারায়ণগঞ্জ ২৪ ডটকম

dailynarayanganj24@gmail.com

 

 
Previous ◁ | ▷ Next
 
2018-09-19-14-16-27ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: সিদ্ধিরগঞ্জে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে ১৮ মামলার আসামী নিহত হয়েছে। নিহত ওই মাদক ব্যবসায়ির নাম ফরিদ মিয়া ওরফে ফেন্সি ফরিদ। ফরিদ নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জ থানার তালিকাভূক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলো বলে জানিয়েছেন র্যা ব-১১র সিনিয়র এএসপি জসিম উদ্দিন পিপিএম। এ ঘটনায় দুই...
     
ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: সকালে সিদ্ধিরগঞ্জে দেয়াল চাপায় সুজন রহমান (৩০) নামে  এক যুবকের মৃত্যু...
 
ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পরিদর্শন করেছেন নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার মোঃ আনিসুর...
     
ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: বন্দরে সেপটিক ট্যাংক বিস্ফোরনে ৪ জন আহতসহ ২টি ভবনের ব্যাপক ক্ষতি...
 
ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম বাংলাদেশ আওয়ামীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এড. আনিসুর রহমান দিপু বলেছেন,নারায়ণগঞ্জের মাটিতেই...
 
নগর-মহানগর
 
     
 
ফতুল্লা
 
     
 
বন্দর
 
     
 
সিদ্ধিরগঞ্জ
 
     
 
সোনারগাও
 
     
 
রূপগঞ্জ
 
     
 
আড়াইহাজার
 
     
 
 
 
 
সর্বশেষ ২৪ শিরোনাম
 
 
বিশেষ সংবাদ
 
বিজ্ঞাপন
 
সাক্ষাতকার
 
বিজ্ঞাপন
 
খেলা
 
বিজ্ঞাপন
 
বিনোদন
 
বিজ্ঞাপন
দূভোর্গ
 
আলোচিত সংবাদ
 
 
 
 
 
 

বন্দরে জন দুর্ভোগের আরেক নাম সোহাগপুর টেক্সটাইল মিল

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকমঃ  খবিরউদ্দিন(৬৫)। পেশা একজন দুধ বিক্রেতা। তার বাড়ি

বন্দর উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের  দাঁশেরগাও এলাকায় । তিনি গরুর দুধ বিক্রি করে সংসার চালান। কিন্তু কিছু দিন পূর্বে দুধ নিয়ে বাজারে যাওয়ার সময় বন্দরের দেউলী চৌরাপাড়া বিধ্বস্ত কবি নজরুল স্কুল সড়কে পা পিচলে পড়ে যান। এতে রাস্তায় উচিয়ে থাকা রডে লেগে আহত হন তিনি। যার কারনে দুই সপ্তাহ ধরে তিনি ওই এলাকায় দুধ বিক্রি করতে যেতে পারেননি। এতে সংসারে দেখা দিয়েছে নানা অভাব অনটন। বৃদ্ধ খবিরউদ্দিনের মত এভাবে আহত হয়েছেন এলাকার অনেকে। কিন্তু কোন ক্ষতিপূরণ পাননি। মাটির নীচ দিয়ে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বৈদ্যুতিক সঞ্চালন লাইন নিতে লক্ষণখোলার সোহাগপুর টেক্সটাইল মিল কর্র্র্তৃপক্ষ ৩ মাস আগে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২৫ নং ওয়ার্ডের কবি নজরুল স্কুল সড়কটির মাঝখানে প্রায় ২ কিলো মিটার খনন করে। খোঁড়াখুড়ির কারণে সড়কটি এখন  মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। দাঁশেরগাও থেকে লক্ষণখোলা পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার সড়কের মাঝখানে খূঁড়ে ফেলা হয়েছে। কোন যানবাহন চলাচল করতে পারছেনা। এক প্রকার বন্দী জীবন যাপন করছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৪ ও ২৫ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা।  দুভোর্গের যেন শেষ নেই তাদের। এ নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছেন বাসিন্দারা। এ অবস্থায় দ্রুত সড়ক সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। তারা জানান, সোহাগপুর টেক্সটাইল মিল এলাকাবাসীকে দুর্ভোগ ছাড়া আর কিছুই দিতে পারেনি। মিলে বিনা বেতনে কিংবা নাম মাত্র বেতনে শিশু শ্রমিক ও বৃদ্ধা মহিলাদের নিয়োগ দেয়া হয়। শ্রমিকদের অধিকাংশের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের বাইরে। বেতন কম দেয়ার কৌশল হিসেবে স্থানীয়দের নিয়োগ দেয়া হয় না। শ্রমিদের মাসিক বেতন ২ হাজার থেকে ৪ হাজার টাকার বেশী নয়। এলাকাবাসী জানান, সোহাগপুর টেক্সটাইল মিল স্থানীয় সন্ত্রাসী মস্তান ও প্রশাসনের কিছু অসাধূ কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে প্রায় দেড় যুগ আগে ঐতিহ্যবাহী সোমবারিয়া বাজার খাল ভরাট করে দখলে নেয়। খালটি সরকারী জায়গায় থাকা সত্ত্বেও তা ভরাট করে নির্মাণ করা হয়েছে বড় আকৃতির গুদামঘর। সরকারী খাল ভরাট করা হলেও দেখার যেন কেউ নেই। খাল দখলের সময় এলাকাবাসীর সঙ্গে মিলের পালিত সন্ত্রাসীদের সঙ্গে বেশ কয়েকবার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। কারি কারি টাকা ঢেলে হামলা ও মামলা দিয়ে এলাকাবাসীকে দমন করে সোহাগপুর টেক্সটাইল মিলের পরিচালক ইসহাক খান। এরপর ইসহাক খান লক্ষণখোলা ট্রান্সফরমারের সামনে একটি পুকুর দখলের চেষ্টা করে। কিন্তু এলাকাবাসীর প্রবল বাধার মুখে পিছু হটে দখলদার ইসহাক খান বাহিনী।

 পুনশ্চঃ মিলটি নদীর পাড়ের জায়গা দখল করে দেয়াল নির্মাণ করে জনগণের চলার পথকে বাধা গ্রস্থ করছে।  সম্প্রতি বিআইডব্লিউটিএ কর্র্তৃ পক্ষ উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে  মিলের দেয়াল ভেঙ্গে দেয়। এরপর মিল কর্তৃপক্ষ পুনরায় কাটা তারের বেড়া দিয়ে জায়গাটি দখলে নিয়ে নেয়। বর্তমানে সরকারী জায়গাটি মিল কর্র্তৃ পক্ষ নিয়ন্ত্রণ করায় মানুষের চলাচলের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। সোহাগপুর টেক্সটাইল মিলের পরিচালক ইসহাক খানের নির্দেশে সড়ক কেটে ফেলায় এলাকাবাসীর দুর্ভোগের যেন অন্ত নেই।  মালামাল পরিবহন করতে না পেরে বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে ওই এলাকার অর্ধশত দোকানপাট ও ছোট বড় প্রায় অর্ধডজন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

এলাকাবাসী জানান, এ বছরের ফেব্রƒয়ারী মাসে কবি নজরুল স্কুল সড়ক নির্মাণ কাজ শুরু করে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। প্রথমে সড়কের পাশে ড্রেন নির্মাণের জন্য রাস্তা খোঁড়া হয়। এর  কিছুদিন পর এলাকাবাসীর প্রবল আপত্তির মুখে সোহাগপুর টেক্সটাইল মিল মাটির নিচ দিয়ে উচ্চ ক্ষমতা স¤পন্ন বৈদ্যুতিক লাইন নেয়ার জন্য সড়কের মাঝখানে গভীর খনন শুরু। এরপর থেকে সড়কটি যানবাহন চলাচলের সম্পূর্ণ অযোগ্য হয়ে পড়ে। প্রায় ৩ মাস কেটে গেলেও খনন শেষ করে সড়কটি নির্মাণ কিংবা সংস্কার করে চলাচল উপযোগী করা হয়নি। ফলে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন এলাকাবাসী। সড়কের এমন বেহাল অবস্থায় পায়ে হেটে  চলাচলও সম্ভব হচ্ছেনা বলে জানান বাসিন্দারা। বিধ্বস্ত সড়কে যাতায়াত করে পড়ে গিয়ে আহত হচ্ছেন পথচারীরা। বিশেষ করে ছাত্রছাত্রী ও রোগীদের  দুর্ভোগ অবর্ণনীয়। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে দ্রুত কাজ শেষ করার তাগিদ দিয়েও  কোন লাভ হচ্ছেনা। অত্যন্ত ধীর গতিতে চলছে  নির্মাণ কাজ। এ দিকে ড্রেন নির্মাণের পর শুরু হবে সড়ক নির্মাণ কাজ। তখন দুর্ভোগ বাড়বে বৈ কমবেনা বলে ধারণা করছেন এলাকাবাসী। ২৪ ও ২৫ নং ওয়ার্ডে টেক্সটাইল মিল, তুলা কারখানা, আটা ময়দার কারখানা ও দোকান পাট রয়েছে। মালামাল পরিবহন করতে না পেরে বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে এলাকার প্রায় অর্ধশত দোকানপাট। মুখ থুবড়ে পড়েছে প্রায় অর্ধডজন শিল্প প্রতিষ্ঠানের উৎপাদন ও বিপনন প্রক্রিয়া। পণ্য পরিবহনের অভাবে ৯ মাস ধরে কারখানা গুলোতে স্থবিরতা বিরাজ করছে বলে কারখানা সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।